চুলের যত্নে প্রতিদিন

উম্মে হানি

চুলের যত্নে এই প্যাক, সেই প্যাক আরও কত কী ব্যবহার করছেন! প্রাত্যহিক চুলের যত্ন ছাড়া এসব হেয়ার ট্রিটমেন্ট কোনো কাজেই আসবে না। রুক্ষতা, অতিরিক্ত তেলতেলে, আরও নানা সমস্যা! সব মিলিয়ে চুলের বারোটা বেজে গেছে। কিন্তু উপায় একটা আছেই! প্রয়োজন নিয়মিত যত্ন এবং সাবধানতা। মেনে চলুন কয়েকটি ঘরোয়া উপায়।

শ্যাম্পু করুন সপ্তাহে তিন দিন

বাইরের ধুলা-ধোঁয়া আর পুষ্টিহীনতায় চুলে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই অনেকে প্রতিদিন চুলে শ্যাম্পু করে থাকেন। তবে প্রতিদিন শ্যাম্পু করার ফলে মাথার ত্বকের প্রাকৃতিক তেলও ধুয়ে যায়। যা চুলের জন্য অত্যন্ত উপকারী। তাই প্রতিদিন নয়, সপ্তাহে তিন দিন শ্যাম্পু করুন।
স্ক্যাল্পের যত্ন নিন

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় অনেকেই মাথার ত্বক (স্ক্যাল্প) পরিষ্কার করার বিষয়টি ভুলে যান। চুলের সমস্যার শুরু হয় এখান থেকেই। তাই মাথার ত্বক অর্থাৎ স্ক্যাল্পে পরিষ্কার রাখা খুবই জরুরি। সপ্তাহে অন্তত এক দিন চুলে শ্যাম্পু করার সময় স্ক্যাল্প বা মাথার ত্বক ভালোভাবে ম্যাসাজ করে ধুয়ে নিতে ভুলবেন না।

কন্ডিশনার ব্যবহার

চুলে শ্যাম্পু করার পর অবশ্যই কন্ডিশনার ব্যবহার করা উচিত। তা না হলে মৌসুমি আর্দ্রতায় চুল শুষ্ক হয়ে যেতে বাধ্য। তাই শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনিং করুন। কন্ডিশনার দূষণ থেকেও চুলকে রক্ষা করে।

ভালোভাবে চুল শুকিয়ে নিন

চুল ভেজা রাখা মোটেও উচিত নয়। কেননা, এতে ব্যাকটেরিয়া ও ফাঙ্গাসের সংক্রমণ হতে পারে। তাই বলে সব সময় হেয়ার ড্রায়ারে চুল শুকাবেন না। সে ক্ষেত্রে ভেজা চুল তোয়ালে দিয়ে ভালোভাবে মুছে বাতাসে শুকিয়ে নিন। হেয়ার ড্রায়ার যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।

ভেজা চুল বাঁধবেন না

ভেজা চুল কখনই বেঁধে রাখবেন না। এতে চুলের গোড়া আলগা হয়ে চুল পড়া, খুশকি এবং চুলে গন্ধ হওয়ার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে।

তেল কত দিন পরপর

প্রতিদিন চুলে তেল দেওয়া জরুরি নয়। তবে চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ও ঝলমলে রাখার জন্য সপ্তাহে অন্তত এক দিন চুলের গোড়ায় এবং পুরো চুলে তেল লাগাতে হবে। চুল শুষ্ক ও ভঙ্গুর হলে দুই দিন পরপর তেল ম্যাসাজ করা ভালো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights