শ্যালিকার বিয়েতে এসে ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু, আত্মীয়-স্বজনদের শোক

ফুলবাড়ী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি: ১২.০২.২৪
কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে শ্যালিকার বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে দুলাভাই (জামাইবাবু) বিকাশ চন্দ্র সরকার (৪২) নামের এক ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যু হয়েছে। এ দূঘর্টনাটি ঘটে বাংলাদেশের উত্তরের জেলা কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নের দক্ষিণ বড়ভিটা গ্রামে।

রবিবার বিকালে গায়ে হলুদের দিনে বুকের ব্যাথা অনুভব হলে শ্বশুড়বাড়ীর লোকজন দ্রুত ফুলবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ভারতীয় নাগরিককে মৃত ঘোষনা করেছেন মেডিকেল অফিসার ডাঃ নাজমিন আক্তার। এ দিকে একমাত্র শ্যালিকার গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে দুলাভাইয়ের মৃত্যুর ঘটনায় বিয়ে বাড়ীসহ এলাকায় চলছে শোকের ছায়া। বাগরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন স্ত্রী শেফালী রানী ও একমাত্র শ্যালিকা কাকলী রানীসহ শ্বশুরবাড়ীর লোকজন। নিহত ভারতীয় নাগরিকের বাড়ী ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার জেলার পুন্ডীবাড়ী থানার দক্ষিণ খাপাইটারী গ্রামে। তিনি ওই এলাকার মিলন চন্দ্র সরকারের ছেলে। ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ ফুলবাড়ী হাসপাতাল থেকে রবিবার রাত ১১ টার দিকে শ্বশুড়বাড়ীতে নেয়া হয়েছে।

নিহত বিকাশ চন্দ্র রায়ের চাচা শ্বশুর ক্ষিতিশ চন্দ্র রায় ও প্রতিবেশি দাদা শ্বশুর কিশোরী চন্দ্র রায় জানান, শ্যালিকার বিয়ে উপলক্ষে গত ১৭ দিন আগে জামাই বিকাশ চন্দ্র সরকার তার স্ত্রী শেফালী রানী রায় (৩৬) ও তিন বছর বয়সী ছেলে বিবেক চন্দ্র সরকারসহ তার শ্বশড় বাড়ীতে আসেন। রবিবার বিকালে বুকের ব্যাথা অনুভব হলে তাকে দ্রুত ফুলবাড়ী হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

তারা আরও জানান, ভাল মানুষ, বয়সও কম। বিয়ে অনুষ্ঠানে এসে এ ভাবে হঠাৎ পৃথিবী ছেড়ে চলে যাবেন এটা মানতে কষ্ট হচ্ছে। পুরো বিয়ে বাড়ীর আত্মীয়-স্বজনদের আনন্দ উৎসবটা একেবারে বিষাধে পরিনিত হলো। যেহেতু বিয়ের তিন তারিখ হয়েছে। কনের বাড়ী ও বরের বাড়ীতে সব আত্মীয়-স্বজনরা এসেছে এবং এই দুর্ঘটনার খবরটি সাথে সাথে বর-পক্ষ (নতুন আত্মীয়কে) জানানো হয়েছে। তাই তাদের সম্মতিক্রমে লগ্নমতো সোমবার রাতে বিয়ে অনুষ্ঠান সম্পূর্ণ হবে। বিয়েতে যে বর ও কনে পক্ষ যে আনন্দটা সেই আনন্দটা মাটি হয়ে গেলো।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রাণকৃষ্ণ দেবনাথ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ তার শ্বশুড়বাড়ীতে আছে। কোন প্রক্রিয়ায় মরদেহ ভারতে যাবে বিষয়টি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সিব্বির আহমেদ জানান, পার্সপোট ভিসা করে বাংলাদেশে আসা ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যুর বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহাদয়কে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ফুলবাড়ী সীমান্তের লালমনিরহাট ১৫ ব্যাটালিয়নের অধীন বিজিবির সদস্যদের মাধ্যমে ভারতীয় বিএসএফকে ভারতীয় নাগরিকের মরদেহ ফেরত দেওয়ার বিষয়ে রাতে জানানো হয়েছে। আজ সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টা পর্যন্ত বিএসএফের পক্ষ থেকে কোন সংবাদ পাওয়া যায়নি। তবে আশাকরছি দুপুরের মধ্যে মরদেহ ফেরতের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights