রোহিঙ্গা ঠেকাতে সর্বোচ্চ সতর্কতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

মিয়ানমারের রাখাইনে গোলাগুলি ও সংঘর্ষ বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে রোহিঙ্গারা। তবে তারা যাতে ঢুকতে না পারে, সে ব্যাপারে সর্বোচ্চ সতর্ক পাহারায় রয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)। এরপরও নাফ নদের ওপারে বেশ কয়েকটি নৌকায় দুই শতাধিক রোহিঙ্গা অপেক্ষায় রয়েছে বলে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সূত্রে জানা গেছে। এ ছাড়া মিয়ানমারে চলমান সংঘাতে অস্ত্রসহ বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী ২৩ রোহিঙ্গার মধ্যে ২২ জনকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শ্রীজ্ঞান তঞ্চঙ্গ্যা শুনানি শেষে এই আদেশ দেন। একই সঙ্গে নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্ত সংলগ্ন ঘুমধুম উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষা বিকল্প কেন্দ্রে গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। এদিকে গতকাল বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. তোফায়েল ইসলাম ও পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি নুরে আলম মিনা। প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদে এসব তথ্য জানা গেছে।

উখিয়া ও কক্সবাজার প্রতিনিধি জানান, মিয়ানমারের রাখাইনে গোলাগুলি ও সংঘর্ষ বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশে ঢোকার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে রোহিঙ্গারা। দিনের বেলায় নাফ নদে ছোট ছোট ডিঙিতে রোহিঙ্গাদের ভাসতে দেখা গেছে। স্থানীয় লোকজন বলেছেন, বিজিবি ও কোস্টগার্ডের সতর্ক পাহারার কারণে দিনে ঢুকতে পারছেন না রোহিঙ্গারা। রাতে সুযোগ বুঝে নাফ নদে পাড়ি দেওয়ার অপেক্ষা করছেন তারা। স্থানীয় লোকজন বলেন, নাফ নদের ওপারে মিয়ানমারের শিলখালী ও বলিবাজার এলাকায় বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মির সঙ্গে সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিপির সংঘর্ষ চলছে। এতে ওই এলাকায় থাকা রোহিঙ্গাদের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে।

বিজিবি ও কোস্টগার্ড সূত্রমতে, নাফ নদে অতিক্রম করে টেকনাফে অনুপ্রবেশের সময় রোহিঙ্গাবোঝাই চার-পাঁচটি নৌকা মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো হয়েছে। একই সময় টেকনাফ সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশের চেষ্টাকালে বিজিবি ১০ জন রোহিঙ্গাকে আটক করে আবার মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে। উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গফুর চৌধুরী বলেন, ‘রহমতের বিল সীমান্ত দিয়ে কোনো রোহিঙ্গাকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। আমরা সতর্ক পাহারায় আছি।’ একই কথা বলেছেন টেকনাফের হোয়াইকং ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুর আহমদ আনোয়ারী। তিনি জানান, তাদের এলাকা দিয়ে রোহিঙ্গারা প্রবেশের চেষ্টা করছে। গত তিন দিনে ছয়জন রোহিঙ্গাকে বিজিবি আটক করে ফেরত পাঠিয়েছে। আরও কিছু রোহিঙ্গা ডিঙি নিয়ে নাফ নদে অবস্থান করছে বলে তারা শুনেছেন। এ জন্য তার এলাকার সব ইউপি সদস্যকে সতর্ক থাকতে বলেছেন। কোনোভাবেই যেন একজন রোহিঙ্গাও ঢুকতে না পারে।
বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরীফুল ইসলাম বলেন, ওপার থেকে যাতে কোনো রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করতে না পারে, সে ব্যাপারে বিজিবি সতর্ক পাহারায় রয়েছে। ইতোমধ্যে এপারে আসতে চেষ্টা করা অনেক রোহিঙ্গাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। কোস্টগার্ডের টেকনাফ স্টেশন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার লুৎফুল্লাহিল মাজিদ জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে ওপার থেকে একজন রোহিঙ্গাও যাতে ঢুকতে না পারে, এ ব্যাপারে তাঁরা সর্বোচ্চ সতর্ক পাহারায় রয়েছেন।

এদিকে গতকাল বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্ত পরিদর্শন করেছেন চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. তোফায়েল ইসলাম ও পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি নুরে আলম মিনা। পরিদর্শনকালে দুই কর্মকর্তা বলেন, পরিস্থিতি বর্তমানে শান্তিপূর্ণ এবং উদ্বেগের কোনো কারণ নেই।

এ ছাড়া মিয়ানমারে চলমান সংঘাতে অস্ত্রসহ বাংলাদেশে অনুপ্রবেশকারী ২৩ রোহিঙ্গার মধ্যে ২২ জনকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। গতকাল কক্সবাজারের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম শ্রীজ্ঞান তঞ্চঙ্গ্যা শুনানি শেষে ২২ জনের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গ্রেফতারের পর কারাগারে থাকা মো. সাদেক নামের এক রোহিঙ্গা অসুস্থ হওয়ায় তার রিমান্ডের অনুমতি দেননি বিচারক। প্রসঙ্গত, ৬ ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের সংঘাতের মধ্যে পালিয়ে আসা বিজিপি সদস্যের পাশাপাশি অস্ত্রধারী এসব রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়।

বান্দরবান প্রতিনিধি জানান, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্ত সংলগ্ন ঘুমধুম উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত এসএসসি পরীক্ষা বিকল্প কেন্দ্রে গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড। চট্টগ্রাম মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর এ এম এম মুজিবুর রহমান স্বাক্ষরিত এক পত্রে এ তথ্য জানানো হয়। প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়, সম্প্রতি মিয়ানমারের অভ্যন্তরের চলমান সংঘর্ষের কারণে নিরাপত্তাজনিত ঝুঁকি থাকায় এসএসসি পরীক্ষা-২০২৪ এর ঘুমধুম উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রের বিকল্প কেন্দ্র হিসেবে ১ নম্বর ও ২ নম্বর উত্তর ঘুমধুম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভবনকে এসএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights