ইলন মাস্কের যে হঠকারী সিদ্ধান্তে বিপাকে টেসলার সুপারচার্জার নেটওয়ার্ক

অনলাইন ডেস্ক

মার্কিন ধনকুবের ইলন মাস্কের হঠকারী সিদ্ধান্তে বিপাকে পড়েছে তার বৈদ্যুতিক গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেসলার সুপারচার্জার নেটওয়ার্ক। কারণ, হঠাৎ করেই টেসলার চার্জিং নেটওয়ার্ক তৈরি ও পরিচালনার সঙ্গে যুক্ত বেশির ভাগ কর্মীকে ছাঁটাই করেছেন তিনি।

জানা গেছে, শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই ২৫ হাজারের বেশি চার্জিং স্টেশন রয়েছে টেসলার। এর পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আরও প্রায় ৫০ হাজারের বেশি সুপারচার্জার স্টেশন তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

কিন্তু প্রতিষ্ঠানটি থেকে বিপুলসংখ্যক কর্মী ছাঁটাইয়ের ফলে টেসলার সুপারচার্জার নেটওয়ার্ক পরিচালনায় ব্যাপক চাপ তৈরি হয়েছে।
টেসলার সাবেক এক কর্মী জানিয়েছেন, “টেসলার বৈদ্যুতিক গাড়ি চার্জ করার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই সুপারচার্জিং নেটওয়ার্ক রয়েছে। বিশাল এ নেটওয়ার্ক তৈরির সঙ্গে যুক্ত বেশির ভাগ কর্মীকেই ছাঁটাই করা হয়েছে। ছাঁটাইয়ের ঘটনা বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরির অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে প্রভাবিত করবে।”

সুপারচার্জার বিভাগে প্রায় ৫০০ কর্মী ছিল। কয়েক ভাগে কর্মী ছাঁটাই করেছে টেসলা। গত এপ্রিলে ইলন মাস্ক অবশিষ্ট পুরো দলকে ছাঁটাই করেন। কিন্তু ১০ মে হঠাৎ টেসলার সুপারচার্জার নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও এতে ব্যবহৃত প্রযুক্তির উন্নয়নে ৫০ কোটি মার্কিন ডলার ব্যয় করার ঘোষণা দেন ইলন মাস্ক। কিন্তু দক্ষ কর্মীদের ছাঁটাইয়ের পর এ খাতে বিনিয়োগ কতটা ফলপ্রসূ হবে, তা নিয়ে প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

২০১২ সালের সেপ্টেম্বরে আমেরিকার লিফোর্নিয়ায় প্রথম সুপারচার্জার স্টেশন চালু করে টেসলা। পরে ধীরে ধীরে টেক্সাসসহ পুরো আমেরিকার বিভিন্ন শহরে নেটওয়ার্ক স্থাপন করা হয়। এখন ইউরোপের বিভিন্ন দেশসহ এশিয়ার দেশ চীনেও সুপারচার্জার স্টেশন চালু করা হচ্ছে। সূত্র: টেকক্রাঞ্চ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights