নওগাঁয় ঐতিহ্যবাহী পাতা খেলা

নওগাঁ প্রতিনিধি
মাঠের মাঝে পুঁতে রাখা হয়েছে আস্ত একটি কলা গাছ। গাছের গোড়ায় মাটির ঘটিতে আমের পাতা ও পানি। আর পাশেই আরেকটি বাটিতে মন্ত্র পড়া দুধ-কলা। কলার গাছ থেকে নির্দিষ্ট দূরত্বে খেলোয়াড়দের খেলার জন্য চক্রাকারে দড়ি দিয়ে বেঁধে রাখা হয়েছে। যেনো অন্যরা প্রবেশ করতে না পারে। আর ঘটির পানিতে হাত ভিজিয়ে খেলোয়াড়রা অবস্থান নিয়ে মাটিতে হাত রেখে শুরু করে মন্ত্র পড়া। এ খেলাটির নাম তন্ত্র-মন্ত্রে ‘পাতা খেলা’। এটি গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী খেলা।

খেলায় ওঝা বা তান্ত্রিক এবং পাতা বা সন্ন্যাসী অন্তত ২০ জন অংশ নেয়। বাদ্যের তালে তালে সন্ন্যাসীরা শারীরিক কসরত প্রদর্শন করেন। মন্ত্রে মুগ্ধ হয়ে সন্ন্যাসীরা কেউ লাফিয়ে কলা গাছে ওঠার চেষ্টা করে। আবার কেউবা সাপের মতো ফনা তুলে কলা গাছে আঘাত করছে। কেউ চক্রাকারের ভেতর থেকে মন্ত্রের টানে বেরিয়ে যায়। আবারও তাকে ধরে নিয়ে আসা হয়। এভাবে প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টায় মুগ্ধ হয়ে সন্ন্যাসীরা কলাগাছটি ভেঙে ফেলে। এভাবে শেষ হয় পাতা খেলা। আর মুগ্ধ হয়ে সন্ন্যাসীদের মন্ত্রের মাধ্যমে সুস্থ করেন তান্ত্রিকরা।

নওগাঁর স্থানীয় সামাজিক সংগঠন একুশে পরিষদের উদ্যোগে শুক্রবার বিকেলে সদর উপজেলার লখাইজানি গ্রামের মাঠে এ খেলাটির আয়োজন করা হয়। যেখানে বিভিন্ন বয়সী হাজারো নারী-পুরুষ এ খেলা উপভোগ করেন। তবে হারিয়ে যাওয়া গ্রাম-বাংলার খেলা ফিরিয়ে আনার দাবি এলাকাবাসীর।
হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী গ্রাম-বাংলার এই পাতা খেলা দেখে উচ্ছ্বসিত এলাকাবাসী। পরিবার-পরিজন নিয়ে বিভিন্ন বয়সীরা খেলা উপভোগ করেন।

খেলার আয়োজক ও সামাজিক সংগঠন একুশে পরিষদ নওগাঁর সভাপতি অ্যাডভোকেট ডিএম আব্দুল বারী ও সাধারণ সম্পাদক এমএম রাসেল বলেন, শত বছরের ঐতিহ্য পাতা খেলা। সুস্থ ধারার বিনোদন হিসেবে এলাকাবাসীদের আনন্দ দিতে এমন খেলার আয়োজন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights