ন্যায়বিচার না হলে আরও মায়ের বুক খালি হবে, উইনের বাবার আকুতি

লাবলু আনসার, যুক্তরাষ্ট্র

নিউইয়র্কে পুলিশের গুলিতে নিহত বাংলাদেশি আমেরিকান উইন রোজারিয়োর বাবা ফ্রান্সিস রোজারিয়ো বলেছেন, ‘ন্যায়বিচার না পেলে আরো অনেক মা-বাবা একই পরিস্থিতির ভিকটিম হবে, এতে কোনো সন্দেহ নেই। এজন্য উইন হত্যার বিচারের জন্য সকলকে সরব থাকতে হবে। এ মুহূর্তে এটাই আমার প্রার্থনা।’

ফ্রান্সিস এ সংবাদদাতাকে আরো বলেন, উইন হত্যাকাণ্ডের পর কম্যুনিটির সর্বস্তরের মানুষ সহানুভূতি জানিয়েছেন, এখনও জানাচ্ছেন।

উল্লেখ্য, নিউইয়র্কে নিজ বাসায় মা ও ছোট ভাইয়ের সামনে ২৭ মার্চ দুপুরে পুলিশের গুলিতে নিহত উইন রোজারিয়োর (১৯) শেষ কৃত্যানুষ্ঠান হবে শনিবার সকালে কুইন্সের উডহ্যাভেনে ৮৭-৩৪ ৮০ স্ট্রিটে। এর আগে তার কফিনবন্দী মরদেহ সর্বসাধারণের জন্য উম্মুক্ত করা হবে। উইনকে দাফন করা হবে পাইন লোন সিমেট্রিতে।
এর একদিন পর সোমবার অপরাহ্নে জ্যাকসন হাইটসে ডাইভার্সিটি প্লাজায় উইন হত্যায় জড়িতদের বিচার দাবিতে বিক্ষোভ-সমবেশের ডাক দিয়েছে গাজীপুর জেলা অ্যাসোসিয়েশন।

জানা গেছে, উইনের জন্মস্থান হচ্ছে গাজীপুর জেলার কালিগঞ্জের হারবাইদ গ্রামে। উইন তার মা-বাবা-ছোট ভাইয়ের সঙ্গে ২০১৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন।

এদিকে, উইনের মা-বাবার পক্ষে লুথারেন চার্চের প্যাস্টর জ্যামস রয় ৩০ মার্চ রাতে এ সংবাদদাতাকে জানান, সোমবার নাগাদ উইনের লাশ পরিবারের কাছে হন্তান্তরের সম্ভাবনা রয়েছে। এর মধ্যেই ময়নাতদন্তের সকল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী ২৭ মার্চ ভরদুপুরে পুলিশের গুলিতে উইন খুন হবার পর আজ রবিবার ভোরে এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত অভিযুক্ত পুলিশদ্বয়ের শরীরে থাকা ভিডিও ক্যামেরার ফুটেজ জনসমক্ষে প্রকাশ করা হয়নি। এজন্য উইনের পরিবারের পক্ষ থেকে ল’ ফার্ম নিয়োগ করা হয়েছে বডি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করতে। এই ল’ ফার্ম এক্সপার্ট দিয়ে তদন্ত চালাচ্ছে বলে এ সংবাদদাতাকে জানিয়েছেন অ্যাটর্নি মঈন চৌধুরী।

অপরদিকে, নিউইয়র্কে বাংলাদেশের কন্সাল জেনারেল মো. নাজমুল হুদা উইনের মা-বাবার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এহেন হত্যাকাণ্ডের জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি সহানুভূতিও জানিয়েছেন। কন্সাল জেনারেল তাদের যে কোনো প্রয়োজনে তার সঙ্গে যোগাযোগের অনুরোধ করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights