প্রেমে ব্যর্থ হয়ে দুই বন্ধুর আত্মহত্যা

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি:

প্রেমে ব্যর্থ হয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় দুই বন্ধু আত্মহত্যা করেছে। মঙ্গলবার সকালে গাছের সাথে ফাঁস দেওয়া অবস্থায় পল্লব বাড়ৈ (২২) নামে কলেজ পড়ুয়া এক যুবকের লাশ উদ্ধার করে কোটালীপাড়া থানা পুলিশ।

অন্যদিকে সোমবার সকালে ঘরের আড়ায় রশি দিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে অশ্রু বিশ্বাস (২৪) নামের অপর এক কলেজ শিক্ষার্থী। তারা দুজনেই বন্ধু ছিল।

পল্লব বাড়ৈ সিকির বাজার গ্রামের গনেশ বাড়ৈ এর ছেলে এবং অশ্রু বিশ্বাস ছিকটিবাড়ী গ্রামের আশুতোষ বিশ্বাসের ছেলে।
এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, পল্লব বাড়ৈ গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কলেজের অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র। সে বরিশালের একটি মেয়ের সাথে দীর্ঘদিন ধরে মোবাইল ফোনে প্রেম করে আসছিল। হঠাৎ করে মেয়েটি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দিলে গত কয়েকদিন তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে। সোমবার দিবাগত ভোররাতে ঘরে কোথাও তাকে দেখতে না পেয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের নিয়ে খুঁজতে বের হন পল্লবের মা-বাবা ও পরিবার পরিজন। মঙ্গলবার সকালে পাশ্ববর্তী একটি গাছে গলায় ফাঁস দেওয়া অবস্থায় তাকে দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে কোটালীপাড়া থানা পুলিশে খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। মৃতের শার্টের পকেটে একটি চিরকুট পাওয়া যায়। সেখানে লেখা ছিল ‘আমার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ী নয়’।
এর আগে গত সোমবার পল্লব বাড়ৈর বন্ধু অশ্রু বিশ্বাস গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। ওই লাশের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া শেষে বাড়িতে আসার পর থেকেই মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েন পল্লব বাড়ৈ।

কোটালীপাড়া থানার এসআই আতাউর রহমান জানান, এ ব্যাপারে একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য গোপালগঞ্জ আড়াই শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
অপদিকে জানা যায়, অশ্রু বিশ্বাস ঢাকায় একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। প্রতিবেশী এক মেয়ের সাথে তার প্রেমের সর্ম্পক ছিল। মেয়েটি অন্যত্র বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর থেকে সে নেশাগ্রস্থ হয়ে পড়ে। কিছুদিন ধরে বিয়ে করার জন্য পরিবারকে চাপ দিয়ে আসছিল অশ্রু বিশ্বাস। এ নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাথে প্রায়ই ঝগড়া বিবাদ করতো। গত সোমবার সকালে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে এই যুবক।

কোটালীপাড়া থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে কোটালীপাড়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা ও গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হওয়ার পর লাশ দাফন করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে কোটালীপাড়া থানার পরিদর্শক ( তদন্ত) ফয়েজ আহম্মেদ বলেন, পল্লব বাড়ৈ প্রেমে ব্যর্থ হয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। আর সোমবার অশ্রু নিজেদের ঘরের আড়ার সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। অশ্রু মানসিক ভারসম্যহীন ছিল। কি কারণে আত্মহত্যা করেছে সেটি তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights