যুক্তরাষ্ট্রের ওপর নির্ভরশীল নয় পোশাকশিল্প

নিজস্ব প্রতিবেদক
বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বের অর্থনীতি অস্থিতিশীল পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে। বাংলাদেশও বিশ্ব অর্থনীতি থেকে আলাদা পথে হাঁটতে পারে না। বিশ্ব অর্থনীতি টালমাটাল হয়ে পড়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি কমলেও, দেশের এই প্রধান রপ্তানিপণ্য শুধু যুক্তরাষ্ট্রের বাজারের ওপরই নির্ভরশীল নয়। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের ওপর নির্ভরতা কমিয়ে আনতে বাংলাদেশের পোশাকশিল্পের বাজার পরিধি এখন অনেক দেশে ছড়িয়ে গেছে। বাংলাদেশ এখন কারও চোখ রাঙানিতে ভয় পায় না। গতকাল তৈরি পোশাক মালিক ও রপ্তানিকারকদের সংগঠন বিজিএমইএর নবনির্বাচিত কমিটির সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের কাছে একথা বলেন তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি কমে যাওয়া প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা বস্ত্রমন্ত্রীকে বিভিন্ন প্রশ্ন করেন। বৈঠকে বিজিএমইএ সভাপতি এস এম মান্নান কচি তৈরি পোশাক খাতের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরেন। মন্ত্রী বলেন, তৈরি পোশাকশিল্পের সমস্যাগুলো চিহ্নিত হয়েছে। কাজেই, যত দ্রুত সম্ভব এগুলোর সমাধান করতে হবে। পোশাক খাতকে শুধু বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের ক্ষেত্র হিসেবেই নয়, সমাজ পরিবর্তনেও ভূমিকা রাখছে। প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠানো ও কাস্টমস নিয়ে বড় অভিযোগ রয়েছে। এনবিআর কর্মকর্তাদের হয়রানির খবর কানে এসেছে। মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিষয়টি তোলা হবে। বিভিন্ন সমস্যা দ্রুত সমাধানের আশ্বাস দেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী। বিজিএমইএ সভাপতি এস এম মান্নান কচি এনবিআর ও কাস্টমসের বিরুদ্ধে নানা হয়রানির অভিযোগ করেন। বলেন, বৈশ্বিক যুদ্ধ ও তেলের দাম বাড়ার কারণে চ্যালেঞ্জের মুখে রয়েছে দেশের তৈরি পোশাক খাত। শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধির কারণে গার্মেন্টসগুলোর ওপর চাপ বেড়েছে। বাজেটে নগদ সহায়তা থাকবে না বলে শোনা যাচ্ছে। যেভাবেই হোক, প্রণোদনা দিয়ে এই শিল্পকে টিকিয়ে রাখতে হবে। নীতি-সহায়তা আমরা চাই। বাংলাদেশ ব্যাংক সার্কুলার দিয়েছে যে অর্থনৈতিক অঞ্চল ছাড়া শিল্প করা যাবে না। এই সার্কুলারটি স্থগিত করে বিনিয়োগের সুযোগ দিন। পোশাকশ্রমিকদের জন্য রেশনিংয়ের ব্যবস্থা করারও দাবি জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights