বৈশাখী উল্লাসে মালয়েশিয়া মাতালেন শফি মণ্ডল, বাবু, লায়লা ও মেরী

মালয়েশিয়া প্রতিনিধি :

আবহমান বাংলার নানা রুপ, বৈচিত্র তুলে ধরার মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানালো মালয়েশিয়া প্রবাসী বাংলাদেশিরা। মালয়েশিয়া প্রবাসী তরুণ ব্যবসায়ীদের সংগঠন বিডি এলিট ক্লাবে’র আয়োজনে ১১ মে রাজধানী কুয়ালালামপুরে ক্রাফট কমপ্লক্সের এ অনুষ্ঠানে যোগ দেন মালয়েশিয়ার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা হাজারো প্রবাসি বাংলাদেশি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের হাইকমিশনার মো. শামিম আহসান। বিশেষ বক্তা ছিলেন দেশটির পাহাং প্রদেশের সংসদের স্পিকার দাতুশ্রী হাজী মো. সরকার হাজী শামসুদ্দিন ও বিশেষ অতিথি এলকিউআইডি এশিয়া প্যাসিফিক এসডিএন বিএইচডি’র নির্বাহি পরিচালক দাতুশ্রী মো. ফারমেজুদ্দিন বিন নাজারুদ্দিন।

শনিবার দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানে নাচ, গান ও আবৃত্তি- কোন কিছুরই কমতি ছিলো না। বৈশাখী উল্লাস নামে এ আয়োজনে ছিলো দেশীয় স্বাদের পিঠা-পুলি, পান্তা ইলিশ, চটপটি, ফুচকাসহ নানা ধরনের খাবারের সমারোহ। বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যায়নরত বাংলাদেশি শিক্ষার্থী, পরিবার নিয়ে আসা প্রবাসী ও তাদের সন্তানদের ব্যস্ত সময় পার করতে দেখা যায় আলপনা আঁকা নিয়ে। পুরো অনুষ্ঠান স্থল সাঁজানো হয় বাংলার রুপ আর বৈচিত্রের নানা দিক নিয়ে। ঢোল তবলা আর বাদ্য বাজনার তালে তালে এদিন আমন্ত্রিত অতিথিদের বরণ করে নেয়া হয়।

হাইকমিশনার শামিম আহসান তার বক্তব্যে, বৈশাখির এ আয়োজনের আয়োজকদের ধন্যবাদ জানানোর পাশাপাশি সংস্কৃতির বিকাশে এমন উদ্যোগ প্রশংসনীয় বলেও মন্তব্য করেন। আয়োজক সংগঠন বিডি এলিট ক্লাবে’র সভাপতি মনসুর আল বাশার সোহেল তার বক্তব্যে বলেন, এলিট ক্লাব প্রবাসে দেশের সংস্কৃতি, ঐতিহ্য ও ভাবমূর্তি উজ্জল করতে বদ্ধ পরিকর। সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে প্রবাসীদের সমস্যা সমাধানেও এ সংগঠন কাজ করবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।
এসময় বিডি এলিট ক্লাব মালয়েশিয়ার প্রতিষ্ঠাতা জাহিদুর রহমান খান কাঁকন ও ‘বৈশাখী উল্লাস ১৪৩১ উদ্‌যাপন কমিটি’র আহ্বায়ক ফরিদ উদ্দিন গাজী উপস্থিত ছিলেন। এ আয়োজনে বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে ঢাকা থেকে যোগ দেন জনপ্রিয় অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু। তবে অভিনয় নয় দর্শকদের অনুরোধে একে একে বেশ কয়েকটি গান পরিবেশন করেন তিনি। ব্যাচেলার পয়েন্ট নাটকের জাকির চরিত্রে অভিনয় করা সাইদুর রহমান পাভেলে’র প্রানবন্ত উপস্থাপনায় দর্শকদের মনকাড়ে সময়ের জনপ্রিয় বাউল শিল্পি শফি মন্ডলের একের পর এক পরিবেশনা ছিল অনুষ্ঠানে। তার গাওয়া গান পুরো অনুষ্ঠান জুড়ে দর্শকদের মুগ্ধতা ছড়ায়।

অনুষ্ঠানে আরো গান পরিবেশন করেন ঢাকা থেকে আগত জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সুলতানা ইয়াসমিন লায়লা ও চট্টগ্রামের আঞ্চলিক গানের শিল্পী জাকিয়া সুলতানা মেরি। এছাড়া সকাল থেকে স্থানীয় প্রবাসী বাংলাদেশিরা নানা ধরনের পরিবেশনায় অংশ নেয়। তবে বাংলাদেশ স্টুডেন্ট অর্গানাইজেশন মালয়েশিয়া’র শিক্ষার্থীদের পবিবেশনাও ছিলো চোখে পড়ার মতো।

বৈশাখি মেলার এ আয়োজনে প্রবাসী বাংলাদেশিদের পাশাপাশি ছিলেন বিভিন্ন দেশের নাগরিকেরাও। প্রবাসে এ ধরনের আয়োজন বিদেশে দেশের ভাবমূর্তি, দেশের সংস্কৃতি উজ্জ্বল করে বলে মন্তব্য করেন আগত অতিথিরা। এসময় বিডি এলিট ক্লাবে’র উপদেষ্ঠা ও কমিউনিটি নেতা রেজাউল করিম রেজা, মকবুল হোসেন মুকুল, দাতুশ্রী কামরুজ্জামান কামাল, অহিদুর রহমান অহিদ, দাতুশ্রী জালাল উদ্দিন সেলিম, মনিরুজ্জামান মনির, দাতু আক্তার, কাইয়ুম সরকার, জসিম উদ্দিন, রাশেদ বাদল, শাহিন সরদার, ইকবাল হোসেন ও মোয়াজ্জেম হোসেন নিপুসহ উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কমিউনিটির অনেকে।

অনুষ্ঠানের স্পন্সরদের মাঝে সম্মাননা স্বরূপ সম্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। সম্মাননা স্মারক তুলে দেন হাইকমিশনের প্রথম সচিব (প্রেস) সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ। এ আয়োজনের শেষাংশে কুপন বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সকাল ১১টা হতে মাঝ রাতব্যাপী চলা আয়োজনে আবহমান বাংলার নানা রুপ, বৈচিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশির আগমনে এদিন কুয়ালালামপুরের ক্র্যাফট কালচারাল কমপ্লেক্স দেখে মনে হচ্ছিল এ যেন এক টুকরো বাংলাদেশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Verified by MonsterInsights